কর্মী ছাঁটাই করছে কোরিয়ার লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: কর্মী ছাঁটাই করতে যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো। ব্যবসায় লোকসান কমিয়ে আনতে এই পদক্ষেপ নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো। প্রাথমিকভাবে স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণের ব্যাপারে কর্মীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে অবসর গ্রহণকারি কর্মীদের ৩৬ মাস থেকে ৫২ মাস পর্যন্ত অবসর ভাতা প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে কোম্পানিগুলো।

ক্রমাগত স্বল্প সুদের কারণে দেশটির লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর ব্যবসায় অবনতি দেখা দিয়েছে।ফলে প্রতিষ্ঠানগুলোতে পুনর্গঠনের পদক্ষেপ গ্রহণ অনিবার্য হয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তাছাড়া সীমিত বিনিয়োগ সুবিধার মধ্যে গ্রাহকদের উচ্চ মুনাফা প্রদানের নিশ্চয়তাকেও লাইফ বীমা পণ্যে লোকসানের কারণ বলে উল্লেখ করেছেন তারা।

ফিনান্সিয়াল সুপারভাইজরি সার্ভিস’র তথ্য মতে, ২০১৫ সালের প্রথমার্ধে কোম্পানিগুলোতে যে পরিমাণ নেট প্রফিট বা প্রকৃত মুনাফা অর্জিত হয়েছিল তার তুলনায় চলতি বছরে ১৭.৯ শতাংশ কম মুনাফা এসেছে। এরইমধ্যে আগামী ২০২১ সাল নাগাদ ইন্টারন্যাশনাল ফিনান্সিয়াল রিপোর্ট স্ট্যান্ডার্ডস (আইএফআরএস)’র আওতাধীন নতুন হিসাব নীতি কার্যকর করা হবে। যা স্থানীয় লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর ওপর আরেকটি বোঝা হয়ে দাঁড়াবে।

দেশটির বীমা শিল্পের তথ্য অনুসারে, গত ৮ নভেম্বর পর্যন্ত যেসব কর্মীর টানা ১০ বছর বা তার বেশি সময় কাজ করা হয়েছে তাদের কাছ থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যাওয়া আবেদন গ্রহণ করবে মেটলাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি অব কোরিয়া। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক বৃহৎ বীমা প্রতিষ্ঠানের এই স্থানীয় শাখা তাদের কর্মীদের ৫০ মাসের বেতনের সমতূল্য অবসর ভাতা প্রদানের পরিকল্পনা করেছে।

আরেকটি প্রধান বীমা প্রতিষ্ঠান মিরাই এসেট লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি গত ১৩ থেকে ২৪ অক্টোবরের মধ্যে কর্মী কাছ থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যাওয়ার আবেদন গ্রহণ করেছে। প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ১০০ জন কর্মী ৩৬ মাসের বেতনের বিনিময়ে অবসর গ্রহণ করবে বলে জানা গেছে। কোম্পানির তালিকা অনুসারে বেতনভুক্ত কর্মীদের ১৮ শতাংশ কমিয়ে আনবে মিরাই এসেট লাইফ ইন্স্যুরেন্স। এছাড়া কোম্পানিটির আরেক প্রতিষ্ঠান মিরাই এসেট সিকিউরিটিজে কর্মচারিদের সরাতেও উৎসাহিত করছে। সূত্র: পালস নিউজ