নতুন গ্রাহক সংগ্রহে শীর্ষ ১০ লাইফ বীমা কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের সরকারি বেসরকারি লাইফ বীমা কোম্পানিগুলো ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে সর্বমোট ১১ লাখ ৫৬ হাজার ৭২৬ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। এরমধ্যে ১০ লাখ ৪১ হাজার ২৬০ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে পুরনো ১০টি কোম্পানি। বাকী ৮টি পুরনো কোম্পানি সংগ্রহ করে ৮৭ হাজার ২৩৫ জন গ্রাহক।

আর নতুন ১৩টি বীমা কোম্পানি মোট ২৮ হাজার ২৩১ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। এরমধ্যে শীর্ষস্থানীয় ১০ কোম্পানি সংগ্রহ করেছে ২৭ হাজার ৩৪৭ জন গ্রাহক। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) -এ দাখিলকৃত তথ্য পর্যালোচনা করে এই চিত্র পাওয়া গেছে। তবে ৩১টি লাইফ বীমা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেসরকারি কয়েকটি কোম্পানির পূর্ণাঙ্গ তথ্য পাওয়া যায়নি।

আইডিআরএ’র তথ্য মতে, ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯ মাসে গ্রাহক সংগ্রহে শীর্ষস্থানীয় ১০টি কোম্পানি হলো- পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, মেটলাইফ আলিকো, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সানলাইফ লাইফ ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স।

গ্রাহক সংগ্রহে শীর্ষস্থানে রয়েছে পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স।একই সময়ে আগের বছরেও কোম্পানিটি সবচেয়ে বেশি নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে শীর্ষ অবস্থানে ছিল। পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২০১৬ সালে সর্বমোট ২ লাখ ৮৯ হাজার ৭০৫ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে। এরআগে ২০১৫ সালের একই সময়ে ১ লাখ ৬৮ হাজার ২৫ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে পপুলার লাইফ।

নতুন গ্রাহক সংগ্রহে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি। বিগত বছরের প্রথম ৯ মাসে কোম্পানিটি ১ লাখ ৭৭ হাজার ৩১৬ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে। এরআগে ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বরে কোম্পানিটি ৮৯ হাজার ৯১৭ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে চতুর্থ অবস্থানে ছিল।

মেটলাইফ আলিকো নতুন গ্রাহক সংগ্রহে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। কোম্পানিটি আলোচ্য সময়ে ১ লাখ ৫৩ হাজার ১৭৯ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। এরআগে ২০১৫ সালে একই সময়ে ১ লাখ ৪২ হাজার ৩০৯ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে মেটলাইফ আলিকো। সেবছর প্রতিষ্ঠানটি নতুন গ্রাহক সংগ্রহে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল।

চতুর্থ স্থানে থাকা ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৪৮৩ জন। আগের বছরের একই সময়ে কোম্পানিটি ১ লাখ ৩৬ হাজার ১০০ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে তৃতীয় অবস্থানে ছিল। আর ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স রয়েছে পঞ্চম স্থানে। কোম্পানিটি মোট ৭৪ হাজার ৪৭৫ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। আগের বছরেও কোম্পানিটির অবস্থান ছিল পঞ্চম। সেসময় নতুন গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ৭৮ হাজার ৮৬৬ জন।

নতুন গ্রাহক সংগ্রহে এবার ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি। আগের বছরে এর অবস্থান ছিল ১১তম। ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠানটির নতুন গ্রাহক সংখ্যা ৫৩ হাজার ৪৬২ জন।আগের বছরে কোম্পানিটি ২৩ হাজার ৭৮৭ জন নতুন গ্রহক সংগ্রহ করে। এরপরের অবস্থানে রয়েছে মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি একই সময়ে ৪৬ হাজার ২০৯ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। আগের বছরেও ৩৮ হাজার ৮৬১ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ কোম্পানিটি সপ্তম স্থানে ছিল।

অষ্টম স্থানে থাকা সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে ৪১ হাজার ৮৬৩ জন। আগের বছরের একই সময়ে কোম্পানিটির গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ৪৫ হাজার ৩৬৮ জন। সেসময় সন্ধানী লাইফের অবস্থান ছিল ষষ্ঠ। সন্ধানী লাইফের পরে অর্থাৎ ৯ম স্থানীয় কোম্পানি প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৪০ হাজার ৩৭ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে।আগের বছরে কোম্পানিটির অবস্থান ছিল অষ্টম। সেসময় নতুন গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ৩৪ হাজার ৪৯৯ জন।

নতুন গ্রাহক সংগ্রহে দশম স্থানে রয়েছে প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি গত বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩১ হাজার ৫৩১ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে।এরআগে ২০১৫ সালে প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১৪ হাজার ৯৮৩ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে। সেসময় কোম্পানিটি ১২তম অবস্থানে ছিল।

এছাড়া বাকী ৮টি কোম্পানির মধ্যে রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২৪ হাজার ১১৮ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১১তম হয়েছে। আগের বছরে ৩০ হাজার ১৬০ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৯ম স্থানে ছিল। সানফ্লাওয়ার লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২২ হাজার ৫৬৩ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১২তম হয়েছে। আগের বছরে একই সময়ে ৯ হাজার ৩৪০ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৫তম স্থানে ছিল কোম্পানিটি।

পদ্মা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১৩ হাজার ৯৫০ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে এবার ১৩তম স্থান অধিকার করেছে। ২০১৫ সালে কোম্পানিটির অবস্থান ছিল ১০ম। সেসময় পদ্মা ইসলামী লাইফের গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ২৬ হাজার ৮২ জন। আর ১০ হাজার ৪০২ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৪তম হয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান জীবন বীমা করপোরেশন। প্রতিষ্ঠানটি ১০ হাজার ৪০২ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। আগের বছরে ৯ হাজার ৫৮৭ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেও ১৪তম ছিল।

হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৮ হাজার ৫৯৭ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৫তম অবস্থানে রয়েছে। আগের বছরে ৫ হাজার ৮৭ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৬তম হয়েছিল। বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স ৪ হাজার ৬৩২ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৬তম হয়েছে।আগের বছরে ৩ হাজার ৮১৩ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৮তম হয়েছিল। ২ হাজার ৯৭৩ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১৭তম অবস্থান ধরে রেখেছে গোল্ডেন লাইফ ইন্স্যুরেন্স।তবে আগের বছরে গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ৪ হাজার ৭৭৮ জন। আর প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্সের তথ্য পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে নতুন ১৩টি বেসরকারি বীমা কোম্পানির মধ্যে সবচেয়ে বেশি নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে শীর্ষস্থানে রয়েছে জেনিথ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কোম্পানিটি ৮ হাজার ২১৯ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে।আগের বছরে কোম্পানিটি ৫ হাজার ১৭৭ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল।

এরপরের অবস্থানে রয়েছে সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি সংগ্রহ করেছে ৩ হাজার ৫৩৪ জন গ্রাহক।এরআগে ২০১৫ সালে ২ হাজার ১২৯ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৫ম হয়েছিল সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে মার্কেন্টাইল লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি আলোচ্য সময়ে ২ হাজার ৯৩৫ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। আগের বছরে এই সংগ্রহ ছিল ২ হাজার ৫০, অবস্থান ছিল ৭তম।

এছাড়া যমুনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২ হাজার ৯০৯ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে চতুর্থ হয়েছে। ২০১৫ সালে কোম্পানিটির গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ২ হাজার ৯৩২ জন। প্রোটেক্টিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স ২ হাজার ৪০৭ জন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে এবার ৫ম হয়েছে। আগের বছরে ১ হাজার ৩৭৮ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১০ম হয়েছিল প্রোটেক্টিভ লাইফ। ৬ষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে চার্টার্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স। কোম্পানিটি ২ হাজার ১৯৫ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করেছে। আগের বছরে এই সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৭৪২, অবস্থান ছিল ৮ম।

আলফা ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১ হাজার ৬৩৮ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৭ম হয়েছে। আগের বছরের একই সময়ে কোম্পানিটির গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ৩২১ জন, অবস্থান ছিল ১২তম। ১ হাজার ২০৮ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৮ম হয়েছে বেস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স। ২০১৫ সালে কোম্পানিটি ১ হাজার ৬২৬ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৯ম হয়েছিল। এনআরবি গ্লোবাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১ হাজার ১৭৩ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৯ম স্থানে রয়েছে।তবে আগের বছরে কোম্পানিটির অবস্থান ছিল ৬ষ্ঠ। সেসময় গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ২ হাজার ৫৪ জন।

গার্ডিয়ান লাইফ ইন্স্যুরেন্স ১ হাজার ১২৯ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে ১০ম হয়েছে। আগের বছরে এই সংখ্যা ছিল ৩০৯, অবস্থান ছিল ১৩তম। আর ৮৮৪ জন গ্রাহক সংগ্রহ করে আগের বছরের মতো এবারও ১১তম অবস্থান ধরে রেখেছে স্বদেশ লাইফ ইন্স্যুরেন্স। আগের বছরে কোম্পানিটির নতুন গ্রাহক সংগ্রহ ছিল ১ হাজার ১৯৪ জন। ডায়মন্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও ট্রাস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ২০১৬ সালের তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে ২০১৫ সালে ডায়মন্ড লাইফ ২ হাজার ১৯৯ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ৪র্থ অবস্থানে ছিল। আর ৬ হাজার ৪৪ জন নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ২০১৫ সালে শীর্ষ অবস্থানে ছিল ট্রাস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স।